বুধবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৮:১৩ পূর্বাহ্ন
ই-পেপার
সংবাদ শিরোনাম
সংবাদ শিরোনাম
মধুপুরে জলছত্র সুপারকাপ ফুটবল টুর্নামেন্ট উদ্বোধন নাটকীয়তার পর প্রেমিকার অধিকার আদায়ঃঅতপর দুই বধু এক স্বামী ময়মনসিংহে নেশাজাতীয় ওষুধ সেবন করিয়ে ধর্ষণ মোহনপুর ইউপিতে নৌকার মনোনয়ন প্রত্যাশী জয়নাল আবেদিন জনি মাঠে অনেক এগিয়ে লক্ষীপাশা জননী সার্জিক্যাল ক্লিনিকে ডাক্তার ভূল অপারেশন করায় রোগীর মৃত্যু। মধুপুরের আকাশী এলাকায় অটোরিক্সা চাপায় মাদরাসা ছাত্র গুরুতর আহত ময়মনসিংহের হালুয়াঘাট উপজেলায় বাল্যবিবাহ বন্ধ করতে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান,এক জনের জেল। ময়মনসিংহবাসীর জন্য ময়মনসিংহ সিভিল সার্জন অফিসের সতর্কবার্তা। ময়মনসিংহের নান্দাইলে নারীর ক্ষত-বিক্ষত লাশ,রক্তাক্ত শিশুর করুণ চিৎকারঃ মধুপুরে কুলি মজদুর ইউনিয়ন আঞ্চলিক কার্যালয় উদ্বোধন

নড়াইল জেলাব্যাপী সরকার কতৃক কঠোর লকডাউনের ঘোষনাকে অমান্য করছে জনগন।

মোঃ এনামুল হক স্টাফ রিপোর্টার / ৩৭ বার
সময় : বুধবার, ২৮ জুলাই, ২০২১, ৫:৩২ অপরাহ্ন

নড়াইল জেলাব্যাপী নড়াইল জেলা প্রশাসক নিয়মনীতিমালা দিয়ে চলতি মাসের ২৩ তারিখ হতে আগামী মাসের ৫ তারিখ পর্যন্ত করোনার ভাইরাস আক্রান্ত প্রতিরোধের জন্য কঠোর লকডাউন জারি করেন।

নড়াইল জেলার ৪টি থানা পুলিশকে অবহিত করেন যে নিয়মনীতির মাধ্যমে সরকারের দেওয়া নির্দেশনার আলোকে দ্বায়িত্ব পালন করতে হবে।

এক জায়গাতে লোকের সমাগম হওয়া যাবে না। প্রশাসনের টিম লক্ষ বা নজর রাখবে। সর্বসাধারন ও সচেতন জনগন এই প্রত্যাশা করেছিলো।তবে জেলা প্রশাসকের নির্দেশনা কেন মানবে না। প্রতিনিয়ত করোনার আক্রান্তের হার বেড়েই চলছে।

নড়াইল সদর সহ নিত্য নতুন পার্ক, লোহাগড়া পার্ক, হাট বাজার,চায়ের দোকানে আড্ডা,রোডে নসিমন, করিমন,ইজিবাইক,মাইক্রো, সব কিছু চলাচল করছে।লকডাউন সাটডাউন নামে মাত্র চলছে।

নিয়ম অনুযায়ী ছিলো কাচাঁবাজার ঔষুধের দোকান,বিশেষ যানবাহন,প্রয়োজনে মানুষ ঘর থেকে বাহিরে বের হওয়া। পাশাপাশি ব্যাক্তিগনের পরিচয়ের মাধ্যমে চেক করা।

মাঠে থাকবে সেনাবাহিনী, বিজিবি, পুলিশ,ডিবি,আনসার ব্যাটেলিয়ন প্রশাসন নিয়ন্ত্রণ করবে পরিচালনায় থাকবে উপজেলা নির্বাহী অফিসার,ভূমি কমিশনার,থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা অফিসার।

সচেতন নাগরিকের ধারনা প্রশাসন যদি ও দেখা যায় তবে পূর্বের মত সক্রিয়ভাবে কাজ করছে না। নিয়ম অনুযায়ী প্রতি বাজারে প্রশাসনের টিম দিতে হবে। অধিকাংশ মানুষ মাস্ক ব্যবহার করছে না। অকারনে হাট বাজারে বিভিন্ন দোকানে আড্ডা জমায়েত করে রাজনীতির আলোচনা আর বাহুল্য কথা ও সময় পার করছে।

লোহাগড়া উপজেলার প্রতিটি বাজারে রাস্তাঘাটে প্রশাসনের কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া উচিত।সরকারের দেওয়া করোনারভাইরাসের কঠোর লকডাউন ঘোষনাকে অমান্য করতে দেখা যায়। লোহাগড়ার বাজার থেকে মহাজন বাজার পর্যন্ত।

জনমতের বক্তব নামের লকডাউন চাই না,কাজের লকডাউন চাই,না হলে লকডাউনের কোন দরকার পড়ে না। এতে মানুষের জনজীবন বিপন্ন এবং ক্ষতিগ্রস্তের স্বীকার হচ্ছে । অনেকেরই ধারনা এই ধরনের লকডাউনের ঘোষনা দিয়ে যদি কার্যকরী করা না হয় তাহলে অযথা মানুষকে কষ্ট না দেওয়াই ভালো।

সচেতন নাগরিকের মন্তব লকডাউন হাস্যকর বলে মনে হয়। কারন ১/২ জনকে জরিমানা করলে কিছুই হবে না। জরিমানা না করে প্রশাসন কঠোর নামের শক্তি প্রয়োগ করলে মানুষ উপকৃত হত। সাধারন একটি চিত্রধারন তুলে ধরা হলো।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও খবর....

বাংলাদেশে করোনা ভাইরাস

সর্বমোট

আক্রান্ত
১,৫৪৫,৮০০
সুস্থ
১,৫০৪,৭০৯
মৃত্যু
২৭,২৭৭
সূত্র: আইইডিসিআর

সর্বশেষ

আক্রান্ত
১,৫৬২
সুস্থ
১,৬০৩
মৃত্যু
২৬
স্পন্সর: একতা হোস্ট
এক ক্লিকে বিভাগের খবর