রবিবার, ০১ অগাস্ট ২০২১, ০৭:৪৮ পূর্বাহ্ন
ই-পেপার
সংবাদ শিরোনাম
সংবাদ শিরোনাম
লোহাগড়া উপজেলার কোটাকোল ইউনিয়নে ফুটবল খেলাকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষ আটক ৫ জন নড়াইলে ডিবির অভিযানে মাদক মামলার আসামী গাঁজাসহ আটক ১ জন ময়মনসিংহ মেডিকেলের করোনা ইউনিটে আরও ১৬জনের মৃত্যুঃ গোদাগাড়ী উপজেলা সমিতির উদ্যোগে জনসচেতনতা সৃষ্টি ও মাস্ক বিতরণ ক্যাম্পেইন বাংলাদেশ ছাত্রলীগ পৌর শাখার ১,২,৩,৪ নং ওয়ার্ড কমিটি ১ বছরের জন্য অনুমোদন দেওয়া হয়েছে লকডাউন এর অষ্টম দিনে আগৈলঝাড়ার বিভিন্ন স্থানে ভ্রাম্যমাণ আদালতের জরিমানা। টাঙ্গাইল জেলার মধুপুর থানা পুলিশের উদ্যোগে চলমান রয়েছে করোনার প্রতিরোধ মূলক প্রচারণা নওগাঁয় শিশুকে ঘরে আটকে রেখে হাত-পা বেঁধে নির্যাতন আটক-১ নড়াইল জেলায় নতুন করে করোনায় আক্রান্ত ২০ জন মৃত্যু ১ জন। ঢাক বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতির মায়ের মৃত্যু

নিয়ামতপুরে যৌতুক মামলার আসামি গ্রেফতার

নিয়ামতপুর প্রতিনিধি / ৩৭৬ বার
সময় : বুধবার, ২৩ জুন, ২০২১, ১০:৪৬ পূর্বাহ্ন

নওগাঁর নিয়ামতপুরে ২৩/০৬/২০২১ মঙ্গলবার সন্ধ্যা ৭.০০ ঘটিকার সময় শ্রীমন্তপুর ইউনিয়নের হরিপুর থেকে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনের এজাহার ভুক্ত মামলার আসামিকে গ্রেফতার করেছে নিয়ামতপুর থানা পুলিশ। আসামি রাকিব (৩০) উপজেলার শ্রীমন্তপুর ইউনিয়নের হরিপুর নিচপাড়া গ্রামের মৃত মহির উদ্দিন মাস্টারের ছোট ছেলে।
ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হুমায়ুন কবিরের নেতৃত্বে পুলিশের উপপরিদর্শক (এসআই) জহিরুল ইসলাম সঙ্গীয় ফোর্সসহ আসামীকে গ্রেফতার করে। গত ১৩জুন ২০২১ তারিখে রাকিব হাসানের বিরুদ্ধে স্ত্রী রাজিয়া সুলতানাকে পিটানো ও যৌতুকের জন্য রাকিবের শশুর আনিছার আলী (৫৫) বাদী হয়ে এজাহার দায়ের করেন। যা মামলা হিসেবে রুজু হয়।
রাকিব হাসানের বড় ভাই মুক্তার হোসেনের সঙ্গে মুঠোফোনে কথা বললে তিনি জানান, এটি মূলত পারিবারিক সমস্যা। আমরা স্হানীয়ভাবে চেষ্টা করছিলাম বিষয়টি মীমাংসার জন্য। কিন্তু এরই মধ্যে পুলিশ এসে আমার ছোট ভাইকে গ্রেফতার করে নিয়ে যায়।
মামলাটির বাদী আনিছার আলীর সঙ্গে কথা বললে তিনি বলেন, আমার মেয়েকে বিয়ে দিয়ে একবছর হচ্ছে। তাদের মাঝে প্রেম-ভালোবাসা ছিল। তাদের পছন্দেই রাজি হয়ে বিয়ে হয়। কিন্তু বিয়ের কিছুদিন পর থেকেই আমার মেয়ের উপর শুরু হয় নির্যাতন। যৌতুকের জন্য আমার মেয়েকে গালিগালাজ থেকে গায়ে হাত উঠায়। উপায় না পেয়ে আমি দুই লক্ষ টাকা রাকিবের হাতে তুলে দিয়েছি গত ছয় মাস আগে। কিছুদিন না যেতেই আবার টাকা নিবে বলে আমার মেয়েকে চাপ দেয়। মেয়ে টাকা দিতে অস্বীকৃতি জানালে ঘটনার দিন আমার মেয়েকে মেরে কচুক্ষতে ফেলে রাখে রাকিব। সেখান থেকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে থানায় এজাহার দায়ের করি।
ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জানান, মামলার প্রধান আসামি রাকিবকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়েছি। অন্যান্য আসামি পলাতক থাকায় তাদের গ্রেফতার করা সম্ভব হয়নি। অভিযান অব্যাহত রয়েছে। যেকোন সময় তাদেরও গ্রেফতার করতে সক্ষম হবো। আসামি রাকিবকে পুলিশের মাধ্যমে আদালতে পাঠানো হয়েছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও খবর....

বাংলাদেশে করোনা ভাইরাস

সর্বমোট

আক্রান্ত
১,২৪৯,৪৮৪
সুস্থ
১,০৭৮,২১২
মৃত্যু
২০,৬৮৫
সূত্র: আইইডিসিআর

সর্বশেষ

আক্রান্ত
সুস্থ
মৃত্যু
স্পন্সর: একতা হোস্ট
এক ক্লিকে বিভাগের খবর