শুক্রবার, ৩০ জুলাই ২০২১, ০১:৫৮ অপরাহ্ন
ই-পেপার
সংবাদ শিরোনাম
সংবাদ শিরোনাম
ঠাকুরগাঁও পীরগঞ্জে বিকাশ ব্যবসায়ী হত্যায় জড়িত ৩ জন আটক লকডাউন এর সপ্তম দিনেও আগৈলঝাড়ার বিভিন্ন স্থানে ভ্রাম্যমাণ আদালতের জরিমানা গলাচিপায় রুহুল হত্যা মামলার প্রধান দুই আসামি গ্রেপ্তার রাজশাহী সাইবার ক্রাইম টিমের জালে আটক এক প্রতারক রাজশাহীর গোদাগাড়ী উপজেলা পরিষদের মাসিক সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত আইডিয়াল কলেজ,ধানমন্ডিতে স্নাতক(সম্মান)শ্রেণিতে ভর্তি চলছে। নড়াইল কালিয়ার ৪ নং মাউলি ইউপি সাবেক চেয়ারম্যান মুন্সী জহিরুল হক জুংগু মৃত্যুবরন করেন । নড়াইল জেলার কঠোর লকডাউন প্রশাসনের দুর্বল বলেছেন সাংবাদিক এনামুল হক ক্যান্সারে আক্রান্ত পিতা’কে বাঁচানোর আকুতি কলেজ পড়ুয়া মেয়ের নড়াইল জেলাব্যাপী সরকার কতৃক কঠোর লকডাউনের ঘোষনাকে অমান্য করছে জনগন।

কানসাটে আম বাজার

সালমা আঁখি- দৈনিক সময়ের সংগ্রাম / ১৯ বার
সময় : শনিবার, ৩ জুলাই, ২০২১, ৯:০৬ পূর্বাহ্ন

করোনার বিস্তার রোধে সারাদেশের ন্যায় আমের রাজধানীখ্যাত চাঁপাইনবাবগঞ্জেও বৃহস্পতিবার (১ জুলাই) থেকে কঠোর লকডাউন চলছে। আর এই লকডাউনের প্রভাব পড়েছে আম চাষিদের স্বপ্নে। বাজারে আম আছে কিন্তু ক্রেতা নেই। তাই আমের দাম হুট করেই অর্ধেকের নিচে নেমে এসেছে।

শুক্রবার (২ জুলাই) দেশের বৃহত্তম আম বাজার চাঁপাইনবাবগঞ্জের কানসাট ঘুরে এমন চিত্র দেখা গেছে।

স্বপন নামে এক আম ব্যবসায়ী জানান, সকাল ৭টায় এক ভ্যান লক্ষ্মণভোগ আম নিয়ে কানসাট বাজারে এসেছিলেন তিনি। দুপুর ১২টা বাজলেও বিক্রি করতে পারেননি।

কেউ কী দাম বলছেন না, এমন প্রশ্নের জবাবে স্বপন জানান, দাম বলছেন- তবে অন্য বছরের তুলনায় অর্ধেকেরও কম । যে আম গত বছর বিক্রি হয়েছে ১৫০০-১৮০০ টাকা মণ দরে। আজ সেই আমের দাম বলছেন মাত্র ৫০০ টাকা মণ।

বাবুপুর গ্রামের হাসান আলি বলেন, বোলিয়া থেকে ২০ ক্যারেট ফজলি জাতের আম নিয়ে এসেছি ঘণ্টা দুয়েক আগে। এখন পর্যন্ত কোনো ক্রেতা আসেনি। এবার আমার গাছে ঝুলছে প্রায় ৫০০ মণ বিভিন্ন জাতের আম। এ আম কীভাবে বিক্রি করব চিন্তায় আছি।

আজ বাজারে কত করে ফজলি আম বিক্রি হচ্ছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আজ শুক্রবার বাজারে আম আছে ক্রেতা নেই, তাই ফজলি আম বিক্রি হচ্ছে ৫০০-৬০০ টাকা মণ দরে। তবুও আমের মণ ৫০ কেজিতে। যা হিসেব করলে প্রতি কেজি ১০ টাকা ৫০ পয়সা পড়ে।

মুন্টু নামে অপর এক ভ্যানচালক বলেন, পাঁকা ইউনিয়ন থেকে সামসুল নামে এক ব্যবসায়ীর গুটি জাতের আম নিয়ে কানসাট বাজারে এসেছি। যা রাস্তার দূরত্ব প্রায় ১৫ কিলোমিটার। তবুও আম বিক্রি হচ্ছে না। আমার সঙ্গে আম ব্যবসায়ীর চুক্তি হয়েছে আম পেড়ে বিক্রি করে এসে ৬০০ টাকা দেয়ার। কিন্তু বেলা দুইটা বাজলেও আম বিক্রি করতে পারিনি। আরও কতক্ষণ লাগবে কে জানে। সেই ভোর ৫টায় ঘুম থেকে উঠে আম পাড়তে গেছি কখন বাড়ি যাব, কহোতো বাপু?

যদিও বিধিনিষেধ শুরুর আগেই জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ঘোষণা দেয়া হয়েছে, আম ক্রয়-বিক্রয় ও পরিবহন লকডাউনের আওতামুক্ত থাকবে। তারপরও আজ কানসাট আম বাজারটি ক্রেতা শূন্য দেখা গেছে।

প্রসঙ্গত, চলতি বছর চাঁপাইনবাবগঞ্জে আড়াই লাখ মেট্রিক টন আম উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করেছে কৃষি বিভাগ। বিগত বছরগুলোতে শুধু কানসাট বাজারে প্রতিদিন প্রায় ১০ থেকে ১২ কোটি টাকার আম বেচা-কেনা হয়েছে। কিন্তু বর্তমানে আম বিক্রি হচ্ছে এক থেকে দেড় কোটি টাকার।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও খবর....

বাংলাদেশে করোনা ভাইরাস

সর্বমোট

আক্রান্ত
১,২২৬,২৫৩
সুস্থ
১,০৫০,২২০
মৃত্যু
২০,২৫৫
সূত্র: আইইডিসিআর

সর্বশেষ

আক্রান্ত
সুস্থ
মৃত্যু
স্পন্সর: একতা হোস্ট
এক ক্লিকে বিভাগের খবর