শনিবার, ২৩ অক্টোবর ২০২১, ০৮:১৯ পূর্বাহ্ন
ই-পেপার
সংবাদ শিরোনাম
সংবাদ শিরোনাম
সাপাহারে ফাইনাল ফুটবল খেলা অনুষ্ঠিত মানুষ মানুষের জন্য সংগঠনের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে হুইল চেয়ার বিতরণ মোখলেসুর রহমান কে বিজয়ী করার এর নৌকা প্রতীকের বিশাল প্রচার মিছিল ময়মনসিংহে ট্রেনে কাটা পরে ২জনের মৃত্যুঃ তানোর মুন্ডুমালা পৌর আ’লীগের বর্ধিত সভায় এমপি ফারুক চৌধুরী আগৈলঝাড়ায় নূর মোহাম্মদ গাজী স্মৃতি ফুটবল টুর্নামেন্টের ফাইনাল খেলা অনুষ্ঠিত এমপি ইঞ্জিঃ এনামুলের সাথে রাজশাহী বরেন্দ্র প্রেসক্লাব নেতৃবৃন্দের সৌজন্য সাক্ষাৎ নড়াইলে এক কৃষকে হত্যার পর ১জন আসামী আটক দেশে কোন ধর্মের মানুষ শান্তিতে নেই:বললেন বিএনপির যুগ্ন মহাসচিব এমপি হারুন নড়াইল জেলার ইতনা ইউপি চেয়ারম্যান নাজমুল হাসান টগর মৃত্যবরন করলেন।

আজ ৮ আগস্ট বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিবের ৯১ তম জন্মবার্ষিকী

মোঃ রাহাত হোসেন আগৈলঝাড়া প্রতিনিধিঃ / ৩৩ বার
সময় : শুক্রবার, ৬ আগস্ট, ২০২১, ৭:৪৪ অপরাহ্ন

খোকা থেকে মুজিব, মুজিব থেকে বঙ্গবন্ধু এবং সবশেষ জাতির পিতা হয়ে ওঠার পেছনে যে নারীর অবদান অনিস্বীকার্য তিনি আর কেউ নয় বঙ্গবন্ধুর সহধর্মিনী বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব। ১৯৩০ সালের ৮ আগস্ট ফরিদপুর জেলার গোপালগঞ্জ মহকুমার টুঙ্গিপাড়া গ্রামে শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিবের জন্ম গ্রহন করেন তার ডাকনাম ছিল রেনু। পিতা শেখ জহুরুল হক ছিলেন শেখ মুজিবুর রহমানের জ্ঞাতি সম্পর্কের চাচা তার মাতার নাম হোসনে আরা বেগম তারা ছিলেন গ্রামের বর্ধিষ্ণু কৃষক পরিবার। তিন বছর বয়সে তার পিতা ও পাচ বছর মাতা মারা যান।শেখ মুজিবের বয়স যখন ১৩ ও শেখ ফজিলাতুন্নেসার বয়স মাত্র ৩ বছর তখন পরিবারের ইচ্ছায় তাদের মধ্যে বিয়ে ঠিক হয়।

১৯৩৮ সালে বিয়ে হবার সময় বঙ্গমাতার বয়স ছিল ৮ বছর ও বঙ্গবন্ধুর শেখ মুজিবুর রহমানের বয়স ছিল ১৮ বছর। পরে এই দম্পতির দুই কন্যা ও তিন ছেলে হয়। তারা হলেন বর্তমান প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনা ও শেখ রেহানা এবং শেখ কামাল, শেখ জামাল ও শেখ রাসেল। বঙ্গবন্ধুর সমস্ত লড়াই-সংগ্রাম-আন্দোলনের নেপথ্যের প্রেরণাদাত্রী ছিলেন বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব। তিনি বঙ্গবন্ধুর সমগ্র রাজনৈতিক জীবন ছায়ার মতো অনুসরণ করে তার প্রতিটি রাজনৈতিক কর্মকাণ্ডে প্রেষণা যুগিয়েছেন।

১৯৬৬ সনের ছয় দফা আন্দোলনের পক্ষে জনসমর্থন আদায় ও জনগণকে উদ্ধুদ্ধ করতে লিফলেট হাতে রাস্তায় নেমেছিলেন বঙ্গমাতা। এসময় তিনি নিজের অলংকার বিক্রি করে সংগঠনের প্রয়োজনীয় চাহিদা মিটিয়েছেন। বঙ্গবন্ধুর ঐতিহাসিক ৭ মার্চের ভাষণের নেপথ্যেও ছিল তার সঠিক দিক নির্দেশনা। আন্দোলনের উত্তাল সময়গুলোতে নিজ বাড়িতে পরম মমতায় নির্যাতিত নেতা-কর্মীর আত্নীয় স্বজনদের আপ্যায়ন করতেন, সুবিধা-অসুবিধার কথা শুনে ব্যবস্থা নিতেন। আশাহত নেতাকর্মীরা খুঁজে পেতেন আশার-আলো, আন্দোলনের জ্বালানি আসতো বেগম মুজিবের আশাজাগানিয়া বক্তব্য থেকে। শহীদ পরিবার ও মুক্তিযোদ্ধাদের ব্যক্তিগতভাবে অর্থ দিয়ে সাহায্য করেছেন তিনি।

স্বাধীনতার পর বীরাঙ্গনাদের উদ্দেশ্যে বঙ্গমাতা বলেন, ‘আমি তোমাদের মা।’ অনেক বীরাঙ্গনাকে নিজে দাঁড়িয়ে থেকে বিয়ে দিয়ে সামাজিকভাবে মর্যাদাসম্পন্ন জীবনদান করেন তিনি। এই মহীয়সী নারী ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর সঙ্গে সপরিবারে স্বাধীনতা বিরোধী দেশি-বিদেশি ষড়যন্ত্রের অংশ হিসেবে খুনিচক্রের বুলেটের আঘাতে নির্মমভাবে শহীদ হন। জাতির পিতার আমৃত্যু সঙ্গী, বাংলার মহিয়সী নারী বঙ্গমাতা ফজিলাতুন্নেছা মুজিবের ৯১ তম জন্মবার্ষিকী যথাযোগ্য মর্যাদায় পালন করবে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ। দিবসটি উপলক্ষে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করে বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহণ করেছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও খবর....

বাংলাদেশে করোনা ভাইরাস

সর্বমোট

আক্রান্ত
১,৫৬৭,১৩৯
সুস্থ
১,৫৩০,৬৪৭
মৃত্যু
২৭,৮০৫
সূত্র: আইইডিসিআর

সর্বশেষ

আক্রান্ত
২৩২
সুস্থ
৫৬৪
মৃত্যু
স্পন্সর: একতা হোস্ট
এক ক্লিকে বিভাগের খবর