রবিবার, ০১ অগাস্ট ২০২১, ০৭:২০ পূর্বাহ্ন
ই-পেপার
সংবাদ শিরোনাম
সংবাদ শিরোনাম
লোহাগড়া উপজেলার কোটাকোল ইউনিয়নে ফুটবল খেলাকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষ আটক ৫ জন নড়াইলে ডিবির অভিযানে মাদক মামলার আসামী গাঁজাসহ আটক ১ জন ময়মনসিংহ মেডিকেলের করোনা ইউনিটে আরও ১৬জনের মৃত্যুঃ গোদাগাড়ী উপজেলা সমিতির উদ্যোগে জনসচেতনতা সৃষ্টি ও মাস্ক বিতরণ ক্যাম্পেইন বাংলাদেশ ছাত্রলীগ পৌর শাখার ১,২,৩,৪ নং ওয়ার্ড কমিটি ১ বছরের জন্য অনুমোদন দেওয়া হয়েছে লকডাউন এর অষ্টম দিনে আগৈলঝাড়ার বিভিন্ন স্থানে ভ্রাম্যমাণ আদালতের জরিমানা। টাঙ্গাইল জেলার মধুপুর থানা পুলিশের উদ্যোগে চলমান রয়েছে করোনার প্রতিরোধ মূলক প্রচারণা নওগাঁয় শিশুকে ঘরে আটকে রেখে হাত-পা বেঁধে নির্যাতন আটক-১ নড়াইল জেলায় নতুন করে করোনায় আক্রান্ত ২০ জন মৃত্যু ১ জন। ঢাক বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতির মায়ের মৃত্যু

আগৈলঝাড়ায় লকডাউন ঢিলেঢালা যেন চোর-পুলিশ খেলা

প্রতিনিধি নাম: / ২৭ বার
সময় : শনিবার, ১০ জুলাই, ২০২১, ৩:৫৪ অপরাহ্ন

 

নিউজ ডেস্ক ঃ
বরিশাল জেলার আগৈলঝাড়া উপজেলার গত চার দিন যাবত উচ্চহারে করোণার আক্রান্ত বৃদ্ধি পেয়েছে। গত চার দিনে করোনার আক্রান্তের হার প্রায় ৭৪%। কিন্তু সরকার ঘোষিত কঠোর লকডাউনের দশম দিনে লকডাউনের তেমন লক্ষ করা যায়নি। কঠোর লকডাউনের প্রথম সপ্তাহে মোটামুটি কঠোরভাবে পালিত হলেও দ্বিতীয় সপ্তাহের তৃতীয় দিনে তেমন কোনো লক্ষ্য করা যায়নি। বেশিরভাগ দোকানপাট খোলা ছিল বড় শপিং মল বন্ধ থাকলেও আগৈলঝাড়া উপজেলার বিভিন্ন স্থানে দোকানপাট খোলা লক্ষ করা যায়। কাঁচা বাজার নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যাদি (মুদি দোকান) প্রচুর লোক সমাগম ছিল।

গত চার দিনে আক্রান্তের হার প্লায় ৭৪% এর মত। কিছু কিছু এলাকায় কঠোর বিধি-নিষেধ মানতে দেখা গেলেও প্রায় জায়গায় ঢিলেঢালাভাবে লকডাউন পালিত হচ্ছে।

আগৈলঝাড়া উপজেলা স্বনামধন্য নির্বাহি অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট জনাব আবুল হাসেম সাহেবের নেতৃত্বে ভ্রাম্যমাণ আদালত বিভিন্ন স্থান পরিদর্শন করেন। ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিদর্শনকালে দোকানপাট বন্ধ থাকলেও পরবর্তীতে আবার খুলে। এভাবেই যেন চোর-পুলিশ খেলা হচ্ছে।

এলাকায় এখনও সেনাবাহিনী বিজেপি লক্ষ করা যায়নি। উপজেলা প্রশাসন ও থানা প্রশাসন অক্লান্ত পরিশ্রম করে যাচ্ছেন তথাপি মানুষের ভিতরে সচেতনতার অভাব রয়েছে।

এলাকাবাসী জানান এ লকডাউন তেমন কোন কাজে আসছে না বরঞ্চ মানুষের আর্থিক ক্ষতি হচ্ছে। অনেকের কাজ বন্ধ তাই সংসার চালাতে খুবই কষ্ট হচ্ছে। অথচ বিধি-নিষেধ যেভাবে মারার কথা ছিল সে ভাবে কেউ এই মানছে না। এলাকা রেডজোন খ্যাত হলেও স্বাস্থ্য বিধি মানার ও মানুষের ভিতরে সচেতনতা তেমন সৃষ্টি হয়নি।

এলাকার সচেতন মহল মনে করেন যত লকডাউন দেওয়া হোক মানুষের মধ্যে যদি সচেতনতা না থাকে তাহলে কোন কাজে আসবে না। মাক্স পড়ার প্রবণতা সামাজিক ও শারীরিক দূরত্ব বজায় রেখে চলা। অকারনে ঘর থেকে বাহির হওয়া, স্যানিটাইজার ব্যবহার করা এগুলি নিজেদের সচেতন হতে হবে। এগুলি মানুষের ভিতরে সচেতনতা না আসলে লকডাউন এর সুফল আসবে না।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও খবর....

বাংলাদেশে করোনা ভাইরাস

সর্বমোট

আক্রান্ত
১,২৪৯,৪৮৪
সুস্থ
১,০৭৮,২১২
মৃত্যু
২০,৬৮৫
সূত্র: আইইডিসিআর

সর্বশেষ

আক্রান্ত
৯,৩৬৯
সুস্থ
১৪,০১৭
মৃত্যু
২১৮
স্পন্সর: একতা হোস্ট
এক ক্লিকে বিভাগের খবর